Home / Golpo-Kotha / নিপা কলটা কেটে ফ্রেশ হতে চলে যায়

নিপা কলটা কেটে ফ্রেশ হতে চলে যায়

নিপা কলটা কেটে ফ্রেশ হতে চলে যায়। ফ্রেশ হবার পর রেডি হয়ে,চলে যায় ইমরানের কাছে। খাবারটাও খেয়ে যায়নি মেয়েটা। এই সময়ে কয়জন বা খেতে চায়। কিন্তু এইটাই ছিলো নিপার শেষ যাওয়া। দুপুর পেরিয়ে বিকেল হলো। বিকেল পেরিয়ে সন্ধ্যা নামলো। বাসার সবাই চিন্তায় পড়ে যায় বিষণ। ফোনেও তাদের পাওয়া যাচ্ছেনা। দুজনের ফোনই সুইচ অফ। এদিকে রাত নেমে এসেছে। চারদিক যতো অন্ধকার হচ্ছে, আবছা কালো ছায়াটা যেনো বাড়ির উপরেই এসে পড়েছে।

সকাল বেলা বের হলো,আর এখন রাত ১২ টা ছুঁই ছুঁই। তাও তাদের নিশানা নেই। অবশেষে ইমরানের আব্বু পুলিশের সাহায্য নেয়। পুলিশকে কল দিয়ে জানিয়ে দেয় ব্যাপারটা। পুলিশ পুরো শহর জুড়ে তাদের খুজে চলেছে। রাত ৩:২৫ বাজে। এখনো কেও ঘুমায়নি। অপেক্ষারত হয়ে আছে সবাই, কবে মিলবে দেখা। রাত ঠিক ৪:৪৩ মিনিটে থানা থেকে একটা ফোনকল আসে। ইমরানের আব্বু রিসিভ করার ১ মিনিট পর মাথা ঘুরে পড়ে যায়। সবাই দৌড়ে এসে উনাকে ধরে।

চোখমুখ আর মাথায় পানি দিয়ে অবশেষে উনার জ্ঞান ফিরে। সবাই কৌতূহল হয়ে জিজ্ঞেস করে কি হয়েছে। ইমরানের আব্বু ওদের জানায়, নিপার লাশ নাকি চৌ-রাস্তার পাশে একটা ডাস্টবিনে পড়ে আছে। আর ইমরান সাহেব নাকি,ঢাকার নাইট ক্লাবে মদ খেয়ে ফুর্তি করতেছিলো। পুলিশ সেখান থেকে ইমরানকে গ্রেপ্তার করে। বাড়ির সবাই ঘটনা শুনে দৌড়ে যায় থানায়। গিয়ে দেখে নিপার লাশ পড়ে আছে থানার বারান্দায়। আর ইমরান জেলখানায় মাতাল অবস্থায় বসে আছে।

পুলিশ ইমরানের পরিবারকে আরো জানায়,যে নিপার ফোনে একটা কল রেকর্ডিং পাওয়া গেছে। যার থেকে স্পষ্ট বুঝা যায়,নিপার হত্যাকারী ইমরান। ইমরানের আব্বু আম্মু কিছুতেই বিশ্বাস করলো না। বাধ্য হয়ে পুলিশ তাদের রেকর্ড শুনায়। রেকর্ড চালু হবার পর সবাই মন দিয়ে শুনছে, -সকাল সকাল কোথায় চলে গেছো। এদিকে চিন্তায় আমি মরে যাচ্ছিলাম। – চিন্তা করার কিছু হয়নি। তুমি খেয়েদেয়ে বাহিরে আসো । আম্মুকে বলবা আমি ডেকেছি। – কোথায় যাবো আমরা? – জাহান্নামে যাবো,যাবে তুমি? – রাগ করো কেনো । কোথায় আসবো বলো। – চৌ-রাস্তার পাশে এসো। – হুম আসছি।

About admin

Check Also

জেনিয়ার সাথে কথা বলছিলো

জেনিয়ার সাথে কথা বলছিলো,নিচে হৈ-হুল্লোড় শুনো এই জেনিয়া লাইনটা একটু কাটো তো নিচে কি যেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *