Breaking News
Home / Golpo-Kotha / ছাত্রীর মা আমার দিকে তাকাইয়া আছে

ছাত্রীর মা আমার দিকে তাকাইয়া আছে

ছাত্রীর মা আমার দিকে তাকাইয়া আছে। চোখ ভর্তী আগুন। আমি উনার দিকে তাকাইয়া কইলাম: – আন্টি আমি কিচ্ছু করি নাই। – আমার মাইয়া আমার কাছে কিছু লুকায় না। সব কইছে আমারে। – কি বলছে ? – পড়ানোর ছময় টেবিলের নিচ দিয়া ঘষাঘসি করছো না ? – আমি করি নাই। আপনার মেয়ে করছে। – চুম্মা দিছো না ? – এইটা আমার ব্যক্তিগত ব্যাপার। ছি! মানুষের ব্যক্তিগত ব্যাপার নিয়ে কথা বলেন কেন? – আব্বে হালায় কয় কি?

আমার বংশের ইজ্জ্বত খাইয়া দিছো আন্টিরে কেমনে কি বুঝাই। আমি ছাত্রীর দিকে তাকাইলাম। ছাত্রীর মুখ কেমন যেন সন্দেহজনক। সে কি কিছু লুকাচ্ছে ! সাদিয়া…ঘটনা কি ? ছার ! মুই কেমতে কমু! বমি বমি লাগে। মাথাডা ঘোরে। পেটে কি যেন লাত্থি মারে। পেটে লাথি মারে ! আন্টি আপনার মেয়ে যদি পোয়াতী হইয়া থাকে। তাহলে আমারে যে শাস্তি দিবেন। আমি মাথা পাইতা নিমু। তবে আগে ডাক্তার দেখাইতে হবে। ভালো ডাক্তার। আন্টি রাজি হইলো।

আমরা ডাক্তারের চেম্বারে বইসা আছি। ডাক্তার চশমার উপরে দিয়া কইলো : – রোগী কে ? – এই যে ও। ‘আমি কইলাম’ ডাক্তার সাদিয়ারে দেইখা ঘটাঘট কিছু টেস্ট লেইখা দিলো। এক্সরে, সিটি স্ক্যান, ব্লাড টেস্ট, আলট্রাসনো, আরো কয়েকটা টেস্ট। ১৬ হাজার টাকা গেল টেস্ট করাইয়া। ডাক্তারদের থেকে ভালো বিজনেস বুঝবে আর কে। রিপোর্ট দেইখা ডাক্তার মুছকি হাসি দিলো। আমি বল্লাম: কি ব্যাপার স্যার ? – কনগ্রেটস। – মানে ? – ছেলে না মেয়ে ছার ? ‘ সাদিয়ার প্রশ্ন’ – বিরিয়ানি ‘ডাক্তারের জবাব’ – এঁ!

স্যার ও যে কইলো বমি বমি লাগে। মাথা ঘুরে। পেটে লাত্থি মারে ? ডাক্তার চশমা মুছতে মুছতে বললো। – এজন্যই সিটি স্ক্যান করাইতে দিয়েছিলাম। মাথায় সমস্যা আছে কিনা দেখার জন্য। কিন্তু অল ক্লিয়ার। এটা বয়সের দোষ। ছাত্রী আপনাকে পছন্দ করে। তাই মনে হয় ড্রামা করছে। আমি ছাত্রীর মায়ের দিকে তাকাইলাম। তিনি একটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে বললেন: – মাস্টর সাব, মনে কিছু নিয়েন না। মাইয়া আমার ড্রামাবাজ। আমার অক্ষন মনে পড়ছে। ফ্রিজে বাসি বিরিয়ানি ছিলো। ও সেগুলা খাইয়া-ই এইসব করছে।

About admin

Check Also

আমি কি বলেছি আমি সাকিবকে বিয়ে করবো

আমি কি বলেছি আমি সাকিবকে বিয়ে করবো? -মানে! সাকিবা ভাইয়ের সাথে প্রেম করিস আর বিয়ে …

জেনিয়ার সাথে কথা বলছিলো

জেনিয়ার সাথে কথা বলছিলো,নিচে হৈ-হুল্লোড় শুনো এই জেনিয়া লাইনটা একটু কাটো তো নিচে কি যেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *